সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

20121227-114556.jpg

কেশ কাহিনী

চুল তার কবেকার অন্ধকার বিদিশার নিশা... এক ঢাল কালো চুল ছাড়া চিরায়ত বাঙালি নারীর রুপ যেন ভাবাই যায়না। সেই চুল নিয়ে যখন চুলোচুলি হয়ে যায় তখন কারই বা ভালো লাগে। ধৈর্য ধরে নিয়মিত কিছু নিয়ম মেনে চললে মাস দুয়েকের মধ্যেই দেখবেন আশেপাশে সবাই বলছে, 'তোমার চুলগুলো তো ভারী সুন্দর'। বিশ্বাস করুন, আমাকে কিন্তু বলেছে।

চুলের কথা আসলেই প্রথমেই যে কথাটা আসে, 'আমার না অনেক চুল পড়ে, কি যে করি'। অনেকের মুখেই দেখা যায় এই অভিযোগ। কিন্তু চুল পড়া নিয়ে টেনশন করলে যে চুল পড়া কমবে তা কিন্তু নয়। বরং খুঁজে দেখতে হবে চুল কেন পড়ছে।

প্রথমেই চুল পড়ার কতগুলো খুব সাধারন কারনের কথা বলি, এই বিষয় গুলো খুব সাধারন হলেও আমরা প্রায়ই এগুলো অবহেলা করে যাই। এবং ফলাফল হচ্ছে হেয়ারফল। তাই জেনে নিন চুল ভালো রাখার কিছু সহজ উপায়।

চুল পড়ার কারণ:
  • অনিয়মিত ঘুম এবং রাতজাগা।
  • ফাস্টফুড এবং ভাজাপোড়া খাবার বেশি খাওয়া।
  • ক্রাশ ডায়েট এ থাকা।
  • পানি কম খাওয়া।
  • ভেজা চুল বেঁধে রাখা। 
  • ঘামে ভেজা চুলে তেল দেয়া এবং শ্যাম্পু করা।
  • চুল সবসময় ছেড়ে রাখা।
  • চুল ঠিক মত পরিষ্কার না করা।
  • চুলে অতিরিক্ত হিট দেয়া বা সেট করা।
  • অনেক সময় কোন ওষুধ খেলেও তার প্রভাবে কারো কারো চুল পড়তে পারে। 
  • চুলে তেল না দেয়া।
এইতো গেলো চুল পড়ার কারন। কিন্তু এই ব্যস্ত জীবনে এ সময়টুকু কোথায় চুলের যত্ন নেয়ার? খুব বেশি কিছুনা, চুল পোড়া কমাতে মনে রাখতে হবে অল্প কয়েকটি বিষয়। যেমন:
 
  • রুটিন মাফিক খাবার এবং ঘুম।
  • চুল পরিস্কার রাখতে নিয়মিত শ্যাম্পু করতে হবে।
  • শ্যাম্পু করার আগের রাতে অবশ্যই চুলে তেল দিতে হবে।
  • চুল বেশি ময়লা হওয়ার আগেই চুল পরিস্কার করা উচিৎ। প্রয়োজনে একদিন পরপর।
  • সেটিং স্প্রে, হিট এসব থেকে দূরে থাকতে হবে। 
  • রাতে চুল বেঁধে ঘুমান।
  • কোন অনুষ্ঠান না থাকলে কর্মক্ষেত্র বা বাইরে চুল বেঁধে রাখুন।
এই বিষয় গুলোর প্রতি খেয়াল রাখলে চুল পোড়া অনেকাংশে কমে যাবে। এর পাশাপাশি যে কাজ গুলি করলে আপনার চুল পোড়া তো কমবেই, সেই সঙ্গে চুল হয়ে উঠবে ঝলমলে তা হচ্ছে:

  • চুলের গোঁড়ায় ক্যাস্টর অয়েল ও আলমণ্ড অয়েল মিশিয়ে লাগান, আর নিচের দিকে লাগান নারকেল তেল। সম্ভব হলে প্রতিদিন, নয়ত একদিন অন্তর অন্তর।
  • চুলে শ্যাম্পু করার আগে লেবুর রস লাগান, ১০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। চুলের ভেজা ভাব কমবে, পাশাপাশি চুল হবে সিল্কি আর উজ্জ্বল।
  • মাসে ২ বার লাগাতে পারেন হেনা প্যাক। চুলের দৈর্ঘ্য অনুযায়ী মেহেদি গুঁড়ো + একটা ডিমের কুসুম + চায়ের লিকার + টক দই+ লেবুর রস, মিশিয়ে নিলেই হেনা প্যাক তৈরি।
  • সপ্তাহে একদিন একটা ডিমের সাথে পরিমান মত দুধ মিশিয়ে পুরো চুলে লাগিয়ে ৪০ মিনিট পড়ে শ্যাম্পু করে ফেলুন। চুলের স্বাস্থ্য ভালো করতে এই প্যাকের জুড়ি নেই।

ধৈর্য ধরে নিয়মিত এই নিয়মগুলো মেনে চললে মাস দুয়েকের মধ্যেই দেখবেন আশেপাশে সবাই বলছে, 'তোমার চুলগুলো তো ভারী সুন্দর'। 

বিশ্বাস করুন, আমাকে কিন্তু বলেছে। 
এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

hair, fall, care, bangali, women, preventive, cause