সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

Desktop.jpg

ঘরেই তৈরি করুন চোখের কাজল

বলা হয়ে থাকে যে কাজল চোখের দৃষ্টি বৃদ্ধির জন্য উপকারী। যখন আপনি চোখে কাজল দেন তখন আইবলের নীচে ম্যাসাজ করা হয় ফলশ্রুতিতে রক্ত চলাচল বেড়ে যায় এবং দৃষ্টিশক্তিও বাড়ে।

আগেকার দিনে আমাদের দাদী নানীরা খুব যত্নে কাজল বানাতো। আর তাদের কাজলদানী গুলোও ছিলো অনেক কারুকাজ করা আর আকর্ষণীয়। দেখলেই যেন কাজল দিতে ইচ্ছা হয়!

তবে এই কাজল চোখের দৃষ্টি বৃদ্ধির জন্য উপকারী। চলুন শিখে নেই ঘরে কাজল বানানোর পদ্ধতি।

  • একটি কাঁসার থালা অথবা স্টিলের থালা নিন। সেটি দুইটি স্টিলের পাত্রের উপর রেখে দিন।
  • এরপর একটি প্রদীপে ঘি বা সরিষার তেল নিয়ে তাতে আগুন জ্বালিয়ে কাঁসার থালার নিচে এমন ভাবে রাখুন যেন থালা আগুল স্পর্শ করে। এভাবে ৩০-৪০ মিনিট রেখে দিন। অনেক সময় রাখতে হবে কারণ কাজল ঘন না হলে তা চোখে ছড়িয়ে যাবে।
  • ৩০-৪০ মিনিট পর দেখবেন থালাতে কালো পাউডারের স্তুপ জমা হয়ে আছে। এগুলো একটি ছোট স্টিল অথবা কাঁসার ছোট পাত্রে নিয়ে তাতে ঘি বা ক্যাস্টর অয়েল ফোঁটায় ফোঁটায় মিশিয়ে নিন ভালো ভাবে এবং ২-৩ ঘণ্টা ফ্রিজে রেখে দিন। তারপর যখন ইচ্ছা ব্যবহার করুন।

যেভাবে ব্যবহার করবেন:

আঙ্গুলের ডগায় অথবা চিকন কোন ব্রাশে খুব অল্প পরিমাণ কাজল লাগিয়ে নিন। তারপর আলতো করে চোখে কাজলের প্রলেপ দিন।

সুবিধা - অসুবিধা সমুহ:

  • অনেকদিন পর্যন্ত ভালো থাকে।
  • হাইজেনিক, মেডিসিনাল কাজেও ব্যবহার করা যায়। যেমন: যদি কোন ময়লা অথবা ধুলোবালি পড়ার কারণে আপনার চোখ জ্বালা পোড়া করে তাহলে আলতো ভাবে কাজল ছুঁয়ে দিন আপনার চোখে দেখবেন নিমিষেই যন্ত্রণা কমে যাবে। তাছাড়া এটা বলা হয়ে থাকে যে কাজল চোখের দৃষ্টি বৃদ্ধির জন্য উপকারী। যখন আপনি চোখে কাজল দেন তখন আইবলের নীচে ম্যাসাজ করা হয় ফলশ্রুতিতে রক্ত চলাচল বেড়ে যায় এবং দৃষ্টিশক্তিও বাড়ে।
  • যেহেতু ঘন কাল রঙ তাই অনেকক্ষণ লাগিয়ে রাখার পরেও রঙের কোন পরিবর্তন আসে না। আর সহজে চোখ থেকে যেতে চায় না।
  • এই কাজল দেয়ার পর চোখ একটু জ্বলতে পারে,তবে এটা খারাপ কিছু না। এতে আপনার চোখে থাকা ময়লা বা ধূলো পানির সাথে বের হয়ে আসবে।
  • খুব অল্প করে এই কাজল নিয়ে ব্যবহার করুন। কারণ এই কাজল অনেক ঘন তাই ছড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

এভাবে ব্যবহার করুন আপনার নিজের তৈরি কাজল।


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

চোখ, সাজ, কাজল, ঘরোয়া, পদ্ধতি, নানী, দাদী, দৃষ্টি, হাইজেনিক, মেডিসিনাল, আইবল, ম্যাসাজ, কাজলদানী, কাঁসা